https://www.profitablegatecpm.com/fn9m7jbb?key=cd5dd27920e1d1b3ddecab391c37b879

  কিডনির জন্য ক্ষতিকর খাবার

কিডনির জন্য ক্ষতিকর খাবার: আসসালামু আলাইকুম, আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো -কিডনির জন্য ক্ষতিকর খাবার সম্পর্কে। চলুন তাহলে কিডনির জন্য ক্ষতিকর খাবার দিক বিবেচনা করে নিচে ব্যাখ্যা করা হলো


পানি পান করা:


 বিভিন্ন সমস্যার কারণে আমাদের কিডনিতে ক্ষতি হয়ে থাকে। এর মধ্যে একটি সাধারণ কারণ হলো পর্যাপ্ত পরিমাণ সময় মতো পানি পান না করা। আমাদের শরীর থেকে পরিপাক মতো প্রক্রিয়ার বর্জ্য করার অপসারণ করা হচ্ছে কিডনির মূল কাজ এবং সেই সাথে  রক্তকণিকাগুলোর ভারসাম্যও বজায় রাখে সব সময় কিডনি। কিন্তু অধিকাংশ মানুষই আছেন যারা তৃষ্ণা না পাওয়া পর্যন্ত পানি পান করে না। পর্যাপ্ত পরিমাণ মতো পানি পান না করায়  বৃক্কের রক্তপ্রবাহ দিন দিন হ্রাস পায় এবং এতে করে আমাদের দূষিত রাসায়নিক বজ্য জমা হতে থাকে রক্তে।


মাংস : 


স্বাদের খাতিরে আমরা অনেক সময় অতিরিক্ত মাংস খেয়ে থাকি। এটা পর্যাপ্ত পরিমাণ করা একদমই ঠিক নয়। সাধারণত অন্যান্য খাবার থেকে মাংস হজম হতে স্বাভাবিকের ভাবে অনেকটা সময় বেশি লাগে। এতে করে আমাদের কিডনির জন্য অনেক বোঝা হয়ে দাঁড়াই। অনেক সময় আমাদের কিডনিতে পাথরও জমতে থাকে। এবং এসব ইউরিক অ্যাসিডের একমাত্র কারণ হয়ে দাঁড়ায়।


ব্যথানাশক:


 সাধারণত আমাদের একটু মাথাব্যথা, গলা-ব্যথা থেকে শুরু করে শারীরিক কোনো অঙ্গে ব্যথা অনুভব হলেই ব্যথানাশক খাওয়ার অভ্যাস  । অধিকাংশ ব্যথানাশকেরই কমবেশি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। এসব জানার পরও আমরা সেইসব ব্যথানাশক খাবার সেবন করে থাকি। এসব ব্যথানাশক কিডনিসহ অনেক অঙ্গে শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের জন্য খুবই ক্ষতিকর করে থাকে। এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, ব্যথানাশকের ওপর দীর্ঘ নির্ভরশীলতা রক্তচাপ কমিয়ে দেয় এবং আমাদের কিডনির কার্যক্ষমতা অনেকটা কমিয়ে দেয়।


লবণ: 


প্রতিদিন আমাদের খাবারে লবণের প্রয়োজন অনেকটাই বেশি হয়ে থাকে। কিন্তু লবণ  অতিরিক্ত খাওয়া ফলে কিডনিতে অনেক প্রভাব ফেলতে শুরু করে। লবণে থাকা অতিরিক্ত সোডিয়াম ভয়ানক ক্ষতি সাধন করে থাকে আমাদের কিডনিতে। এক্ষেত্রে খাবারে লবণের পরিমাণ আমাদের কম-বেশি করে নেওয়া উচিত । তবে প্যাকেটজাতীয় লবণ খাবারে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব থেকে যায়। এ কারণে আমাদের জাঙ্ক ফুড এড়ানো উচিত। আমাদের প্রত্যেকের মানবদেহে প্রতিদিন মাত্র 1 চা চামচ লবণের চাহিদা থাকে। এজন্য আমাদের কিডনি ভালো রাখার জন্য অতিরিক্ত লবণ খাওয়া থেকে সবাইকে সাবধান হওয়া উচিত। শরীরে 140/90 এর উপরে রক্তচাপ থাকলে কিডনির সমস্যা হওয়ার অনেকটা ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় এবং কিডনি সুস্থ রাখতে আমাদের সবসময় রক্তচাপ 130/80 বা এর চাইতে কম রাখার চেষ্টা করুন।


কলা : 


 ক্যালসিয়াম ও এনার্জি  আমাদের দেহের ঘাটতি পূরণ করে। আগে থেকেই যাদের কিডনিতে সমস্যা রয়েছে তাদেরকে একদমই কলা খাওয়া ঠিক নয়। কলায় থাকা অতিরিক্ত পটাশিয়াম আমাদের কিডনির অকার্যকারিতা হ্রাস করে। এর ফলে সোডিয়াম যদিও কম থাকে তবে মাঝারি ধরনের একটি কলায় 422 গ্রাম পটাশিয়াম থাকে। যাদের আগে থেকে কিডনির সমস্যা আছে তারা কলা খাওয়া থেকে বিরত থাকেন।


এনার্জি ড্রিংকস :


আমাদের অনেকেই  কোমল পানীয় বা অন্যান্য এনার্জি ড্রিংকস খাবার খাওয়া এখন রীতি হয়ে গেছে। 


আবার অনেকের তৃষ্ণা পেলেও পানির পরিবর্তেও এখন এনার্জি ড্রিংকস বা কোমল পানীয় খেয়ে থাকেন। কিন্তু এসব পানীয় খাবার কিডনির জন্য ব্যাপক ক্ষতি করে থাকেন। প্রতিদিন পরিমাণ মতো একজন মানুষের অন্তত 8 গ্লাস পানি সেবন করা  উচিত। আমাদের অতিরিক্ত ঘামের ফলে  পানি খাওয়ার পরিমাণ অনেক বাড়িয়ে দিতে হবে। পরিমাণ মতো পানি পান করার ফলে কিডনিতে পাথর হয় না। ধূমপান ও মদ্যপানের জন্যও কিডনির স্বাভাবিক সমস্যা হতে পারে। ধূমপান ও মদ্যপানে ফলে কিডনির রক্ত চলাচল ধীরগতিতে হয় এবং এতে কিডনির কার্যক্ষমতা কমে হ্রাস পায়।


কমলালেবু:


আমাদের সমাজে অনেক মানুষ আছেন যারা খোসা ছাড়িয়ে কমলালেবু খান। অতিরিক্ত ভিটামিন-সি’র চাহিদায় বা লোভে পড়ে আমাদের অতিরিক্ত কমলালেবু খাওয়া উচিত নয়। কেননা, লেবুতেও অনেক প্রচুর পরিমাণ (p) পটাশিয়াম থাকে। আর এ পটাশিয়াম গুলো কিডনিতে গিয়েই খুব সহজেই জমা পড়ে। শরীরে প্রতিদিন প্রায় 500 মিলিগ্রাম ভিটামিন-সি হলেই যথেষ্ট। নিয়মিত  অতিরিক্ত কমলালেবু  খাওয়ার ফলে ভিটামিন-সি কিডনিতে পাথর সৃষ্টির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই পরিমাণ মতো ভিটামিন-সি খাওয়া দরকার।

আমাদের শেষ কথা:

আপনাদের যদি আমাদের এই উপরের কিডনির ক্ষতিকর খাবার সম্পর্কে ভালো দিকনির্দেশনা পান। তাহলে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। এবং আমাদের যদি আপনাদের বোঝাতে কোন ভুল ত্রুটি হয়ে থাকে তাহলে ক্ষমা করে দেবেন। আল্লাহ হাফেজ



এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবার আইটি বাড়িরনীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url