https://www.profitablegatecpm.com/fn9m7jbb?key=cd5dd27920e1d1b3ddecab391c37b879

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?এ টু জেড ২০২৩

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়-আসসালামু আলাইকুম আশা করি সকলে ভালো আছেন,আজকে এই পোস্টটি শুধু তাদের জন্য, যারা ব্লগিং করে  অনলাইনে থেকে আর্নিং করতে চাচ্ছেন এবং ব্লগিং বিষয় সম্পর্কে টু জেড জানতে চাচ্ছেন|ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?এ টু জেড ২০২৩

এর পাশাপাশি আজকে আমি আপনাদেরকে ব্লগিং সম্পর্কিত তথ্য দিবো সেই তথ্যগুলি যারা       ব্লগিং শুরু করতে চাচ্ছেন তাদের প্রয়োজনে আসবে আমি নিজে এক্সপেরিমেন্ট করে যেগুলোর রেজাল্ট পেয়েছি সেই সম্পর্কে বিষয়গুলি শুধুমাত্র আপনাদের সাথে শেয়ার করব

ব্লগিং কি?

ব্লগিং হল অনলাইনে অর্থ উপার্জনের একটি মাধ্যম সারা বিশ্বের মানুষ এই ব্লগিং  কাজ করে ভালো আয় করছে এবংব্লগিং করে আজ সারা বিশ্বে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বিশেষ করে, বাংলাদেশের, ভারত, পাকিস্তান, , আমেরিকা, জার্মানিলোকেরা বেশিরভাগ ব্লগিং করে থাকে ফলে সব দেশই  বেশি উন্নত ব্লগিং হল অনলাইনে অনেক ধরনের কাজের মধ্যে  অন্যতম আপনি যদি একজন সফল ব্লগার হতে পারেন তাহলে আপনি  ব্লগিং থেকে আয় করবেন

 এবংআপনি প্রতি মাসে ভাল অর্থ ইন২ করতে পারেন এর জন্য আপনাকে অনেক অনেক  পরিশ্রম করতে হবে অনলাইনে  সব ধরনের চাকরির মধ্যে, ব্লগিং এর জন্য সবচে বেশি পরিশ্রমের প্রয়োজন তবে, আপনাকে যেমন কঠোর পরিশ্রম করতে হবে, তেমনি আপনি আয়ও পাবেন  যদি আপনি ব্লগিং করে সফল হতে পারেন তাহলে তা হলে আপনি মাসে - হাজার ডলার ইনকাম করতে্ন পারবেন আশা করি আপনারা ব্লগিং কি সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন|

 ব্লগিং করে কি ইনকাম করা যায়?

আপনি ব্লগিং করে প্রতি মাসে হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারেন তবে এর জন্য আপনাকে অনেক কঠোর পরিশ্রম করতে হবে কারণ আপনার ব্লগ সাইটটিকে গুগলে ভালো অবস্থানে আনতে আপনার অনেক সময় লাগবে আপনি স্বল্প সময়ের মধ্যে আপনার ব্লগ সাইটকে ভালো অবস্থানে আনতে পারবেন না এর জন্য আপনাকে অনেক পরিশ্রম করতে হবে

এমনকি পোস্টটি এসইও ভালো হতে হবে, যাতে পোস্টটি গুগলে ইনডেক্স করা হলে তা গুগলের প্রথম পাতায় থাকে মনে করুন আপনি দৈনিক হাজার সার্চ পড়ে আপনার ব্লগ সাইটে এমন একটি কিওয়ার্ড দিয়ে পোস্ট করেছেন, দেখা গেছে যে পোস্টটি গুগলের প্রথম পাতায় স্থান পেয়েছে যখন কেউ আপনার কীওয়ার্ড দিয়ে গুগলে সার্চ করে, তখন আপনার পোস্টটি তার সামনে আসে,

কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায়?

ব্লগিং আয় সাধারণত Google Adsense থেকে হয় মনে করেন, আপনি আপনার ব্লগ সাইটে প্রতিদিন ২০০০ভিজিটর পান এবং এই ২০০০ জন আপনার বিভিন্ন পোস্ট বিস্তারিতভাবে পড়ে এই ২০০০ জনের মধ্যে, ধরুন ১০০০ জন লোক আপনার ব্লগ ওয়েবসাইটে গুগল বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে দেখা যায় গুগল অ্যাডসেন্সে প্রতি বিজ্ঞাপন ক্লিকে ০.১০$ যোগ করেছে সুতরাং আপনার যদি ১০০০জন Google বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে তাহলে ১০০০×০.১০$= ১০০ডলার আয় তাই আপনার দৈনিক আয় যদি ১০০ ডলার হয় তাহলে মাসে ১০০x ১০ = ৩০০০ ডলার আয় ৩০০০ ডলার বাংলাদেশি টাকায় লাখ

তাই দেখুন আপনার যদি প্রতি মাসে 3 লাখ টাকা আয় হয় তাহলে আপনার অন্য কোনো কাজ বা চাকরির প্রয়োজন নেই তবে ব্লগিং করে উপার্জিত টাকা নগদ, রকেটে, বিকাশ, , তোলা যাবে না ব্লগিং এর  টাকা তোলার জন্য আপনার অবশ্যই একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে আপনি সহজেই ব্যাংকে ব্লগিং এর টাকা তুলতে পারবেন ব্লগিংএর জন্য টাকা তোলার জন্য গুগলের কিছু নিয়ম রয়েছে যেমন গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্টে 100 ডলার জমা না হওয়া পর্যন্ত আপনি টাকা তুলতে পারবেন না আশা করি আপনি ব্লগিং  কিভাবে আয় করবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন

ব্লগিং করে কত টাকা প্রতি মাসে আয় করা যায়?

বিশেষ করে যারা ব্লগিং নতুন তাদের মনে অনেক প্রশ্ন জাগে যে ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় এই সঠিক উত্তর  আমরা ইতিমধ্যেই জানাসেন যে একজন সফল ব্লগারের মাসিক 4-5 হাজার ডলার আয় করা কোন ব্যাপার না তবে এই পর্যায়ে যেতে হলে আপনাকে কঠোর কাজ করে যেতে হবে এবং ধৈর্য দারন করতে  হবে আপনি যদি ব্লগিং শুরু করার এগেই অর্থ উপার্জনের কথা ভাবেন তাহলে আপনি এই পর্যায়ে যেতে পারবেন না শুধু ব্লগিং নয় অনলাইনে সব ধরনের কাজ করার জন্য আপনাকে প্রচুর  পরিশ্রম ধৈর্য শিল হতে  হবে

 ব্লগিংকরতে কি কি লাগবে?

 ব্লগিং করতে একটি স্মার্ট মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার ডিভাইস লাগে ।একটি ইন্টারনেট সংযোগ প্রয়োজন হবে ।আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন দিয়েও ব্লগিং শুরু করতে পারেন ।ব্লগিং এর জন্য আপনাকে ব্লগার থিম নিজেই কাস্টমাইজ করতে হবে,পোস্ট করার সময় আপনাকে অন-পেজ Seo করতে হবে, এবং সাথে অফ-পেজ Seo করতে হবে, আপনাকে ইমেজ তৈরি করতে হবে, এগুলো মোবাইল দিয়ে করা অসম্ভব । আপনি মোবাইল দিয়ে করতে পারবেন কিন্তু খুব কঠিন হবে ।তাই আপনি যদি নিজেকে একজন সফল ব্লগার হিসেবে গড়ে তুলতে চান তাহলে আপনাকে কম্পিউটার নিয়ে কাজ করতে হবে । দেখা যায় অনেকে ব্লগিং শুরু করতে চায় কিন্তু টাকার অভাবে কম্পিউটার কিনতে পারে না । তারা মোবাইল দিয়ে ব্লগিং শুরু করতে পারেন । ব্লগিং থেকে সাধারণত প্রথম দুই থেকে তিন মাস কোনো আয় হয় না । কিন্তু দুই-তিন মাস পর আপনার কিছু আয় থাকলে সেই টাকা দিয়ে আপনি একটি কম্পিউটার বা ডেস্কটপ কিনে নিয়ে একজন সফল ব্লগার হতে পারেন । ব্লগিং করার জন্য আপনার বাড়িতে অবশ্যই মোবাইল নেট W-fi নেটওয়ার্ক লাইন থাকতে হবে । নেটওয়ার্ক ছাড়া ব্লগিং সম্ভব নয়।

 মোবাইল দিয়ে কি ব্লগিং করা যায়?

 আমরা আগেই জানিয়েছি যে মোবাইল দিয়ে ব্লগিং করা সম্ভব কিন্তু সফল ব্লগার হওয়া সম্ভব নয় নিজেকে একজন সফল ব্লগার হিসেবে গড়ে তুলতে আপনার অবশ্যই একটি কম্পিউটার লাগবে কিন্তু আপনি যদি ব্লগিং এর কাজ সম্পন্ন করতে পারেন তাহলে আপনি মোবাইল দিয়ে ব্লগিং শুরু করতে পারেন এর জন্য আপনার মোবাইলে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে তারপর আপনাকে গুগলে Blogger.com সার্চ করবেন , তার পর আপনাকে ব্লগার ওয়েবসাইটে নিয়ে যাবে

এখানে আপনাকে আপনার ইমেল, সেইসাথে প্রদর্শন নাম এবং ডোমেন নাম প্রদান করতে বলা হবে সবকিছু সঠিকভাবে দেওয়ার পর আপনার ব্লগার সাইট তৈরি হয়ে যাবে ব্লগার দ্বারা প্রদত্ত ডোমেন একটি সাবডোমেন যেমন আপনি যদি ডোমেইন নাম দেন sobaritbari তাহলে আপনার সাইটের url দেখাবে sobaritbariblog.blogspot.com  কিন্তু আপনি চাইলে এই blogspot.com ছাড়া অন্য কোন ভালো ডোমেইন কিনে অ্যাড করতে পারেন ধরুন আপনি sobaritbari.com এই ডোমেইনটি কিনে আপনার ব্লগার সাইটে যোগ করতে পারেন কোন সমস্যা নেই আপনি এতদিন কাজ করার পর, এখন আপনার কাজ দৈনিক ওয়েবসাইটে পোস্টটি প্রকাশ করা তবে ব্যস্ত থাকলে দুই-তিন দিন পর পর পোস্ট প্রকাশ করতে পারেন ওয়েবসাইট|

এই ধরনের পোস্ট করার জন্য, যখন ব্লগ সাইটে ৩০-৪০টি পোস্ট প্রকাশিত হয়, আপনি আপনার সাইটে Google বিজ্ঞাপনের জন্য Google AdSense  এর জন্য এপ্লাই করতে পারেন আপনার সাইট বিজ্ঞাপনের জন্য যোগ্য হলে গুগল আপনাকে অ্যাডসেন্স দেবে

ব্লগিং করতে কত টাকা খরচ হয়?

ব্লগিং শুরু করার জন্য শুধুমাত্র একটি ডোমেইন কেনা প্রয়োজন যার দাম সর্বোচ্চ এক হাজার টাকা বা কিছু টাকা আর লাগতে পারে এছাড়া আপনি যদি আপনার ব্লগ ওয়েবসাইটটিকে সুন্দর ভাবে দেখাতে চান তাহলে আপনি ব্লগার থিম কিনতে পারেন কিন্তু আপনি চাইলে আপনার ব্লগ ওয়েবসাইটকে ফ্রি থিম দিয়ে সুন্দর ভাবে গড়ে তুলতে পারেন এজন্য আপনাকে ব্লগের থিমগুলো ভালোভাবে কাস্টমাইজ করা শিখতে হবে তবে ব্লগিং করে ইনকাম করার জন্য ওয়েবসাইটকে সুন্দর করার দরকার নেই ব্লগিং আয়ের মূল বিষয় হল গুগল থেকে প্রতিদিন সাইটে ভালো ভিজিটর পাওয়া আপনি যদি Seo ভালো না করতে পারেন তাহলে ব্লগিং আপনার জন্য না কারণ সঠিক অনপেজ এসইও ছাড়া কোনো পোস্ট প্রকাশিত হলে সেই পোস্ট গুগলে ্যাঙ্ক পাবে না

 ব্লগিং শুরু করার আগে গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন থেকে যায়, ব্লগিং করতে কি শিখতে হবে?  তা হল

Keyword Recherch এর ব্যবহার জানা

Permalink এর ব্যবহার

On Page Seo এর ব্যবহার জানা

Of Page Seo এর ব্যবহার জানা

Technical Seo এর ব্যবহার জানা

Image Seo এর ব্যবহার জানা

Seo Friendly Content লেখা

Focus Keyword এর ব্যবহার জানা

Backlink করা এর ব্যবহার জানা

 Meta Tag এর ব্যবহার জানা

Meta Description এর ব্যবহার জানা

Heading Tag এর ব্যবহার জানা

Bold Tag এর ব্যবহার জানা

Image Upload করার নিয়ম

Video Upload করার নিয়ম

Internal Link করার নিয়ম ইত্যাদি

যদি এগুলো ভালোভাবে শিখতে পারেন তাহলে নিজেকে একজন সফল ব্লগার হিসেবে গড়ে তুলতে পারবেন এমনকি আপনি ভাল আয় করতে পারেন আশা করি আপনি ব্লগিং সম্পর্কে কী শিখবেন তার  ধারণা পেয়েছেন

কিভাবে ব্লগিং থেকে আয় করা যায়?

ব্লগিং অনলাইনে করা সবচেয়ে সহজ কাজগুলির মধ্যে একটি যে কেউ ব্লগিং করতে পারেন তবে এর জন্য তার যোগ্যতা থাকতে হবে ব্লগিং থেকে আয় করার কিছু উপায় আছে আপনি পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করলে আপনি অবশ্যই ভাল আয় করতে পারেন তো চলুন বিস্তারিত জেনে নেই ব্লগিং থেকে আয় করার উপায় সম্পর্কে

 ব্লগিং থেকে আয় করার জন্য আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটে ভালো ভিজিটর আনতে হবে এর জন্য আপনাকে ভালো কীওয়ার্ড দিয়ে পোস্ট লিখতে হবে এছাড়া পেজ এসইওতে পোস্ট ভালো করতে হবে

বর্তমান বাংলাদেশী ব্লগ সাইট থেকে ভালো মানের আয় করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে কারণ বাংলা ব্লগ ওয়েবসাইটে গুগলের সিপিসি খুবই কম ইংরেজি ব্লগ ওয়েবসাইটে গুগল বিজ্ঞাপন প্রতি ক্লিকে -2২ডলার প্রদান করে এবং বাংলা ব্লগ ওয়েবসাইটে গুগল বিজ্ঞাপন প্রতি ক্লিকে ০.১০$ দিয়ে থাকে তাই আমরা আপনাকে ইংরেজিতে বিভিন্ন বিষয়ে পোস্ট করার পরামর্শ দিচ্ছি এতে আপনি খুব দ্রুত সফল হতে পারবেন

আপনি যদি ব্লগিং করে আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই ওয়েবসাইটে আপনার ভালো ভিজিটর থাকতে হবে আপনার ভালো দর্শক না থাকলে আপনি আয় করতে পারবেন না আপনি চাইলে ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে আপনার ব্লগ পোস্টের লিঙ্ক শেয়ার করে ভিজিটর আনতে পারেন তবে গুগল এই সব ভিজিটরকে ভালো চোখে দেখছে না গুগল ওয়েবসাইটে অর্গানিক ভিজিটর চায় আসলে, গুগল বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া ভিজিটর ওয়েবসাইটকে কম সিপিসি দেয় ধরুন যদি অর্গানিক ভিজিটর প্রতি বিজ্ঞাপন ক্লিকে $ দেয়, তাহলে সোশ্যাল মিডিয়া ভিজিটর প্রতি বিজ্ঞাপন ক্লিকে $0.20 প্রদান করে

ব্লগিং ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স কতদিন পরে পাওয়া যায়?

 তবে আপনি চাইলে ৩০ থেকে মাসের মধ্যেই পেয়ে যেতে পারবেন

ব্লগিংয়ের পেমেন্ট মাসের কত তারিখে দেয়?

গুগল এডসেন্স  হলে থাকলে প্রতি মাসে ২৫ থেকে ২৭ তারিখ এর মধ্যে পেয়ে যাবেন

গুগল এডসেন্সে এর কত ডলার হলে আপনি পেমেন্ট পাবেন?

গুগল এডসেন্স ১০০ ডলার হলে আপনি পেমেন্ট দিতে পারবেন

 আমাদের শেষ কথা -

 যারা ব্লগিং করে প্রতিমাসের লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে চানএবং ব্লগিং শুরু করতে চাচ্ছেন আজকের এই পোস্টটি তাদের অবশ্যই উপকারে এসেছেতাই ব্লগিং সম্পর্কিত আরো সকল বিষয় জানতে আমাদের ওয়েবসাইটের সঙ্গে  থাকুনআল্লহা হাবেজ!

 

 

 

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সবার আইটি বাড়িরনীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url